Politics

[Politics][bleft]

West Bengal

[West Bengal][grids]

World

[World][bsummary]

National

[National][twocolumns]

মূত্রনালীর ইনফেকশনের প্রাথমিক লক্ষণ এবং ঘরোয়া প্রতিকার জেনে নিন

 মূত্রনালীর ইনফেকশন পুরুষ এবং মহিলা উভয়রই হয়ে থাকে। আবার, অনেকেই প্রাথমিক পর্যায়ে এই সংক্রমণ সম্পর্কে জানেন না।  ফলে এর প্রভাব শরীরে পরিমিতভাবে পড়ে।  দীর্ঘস্থায়ী মূত্রনালীর ইনফেকশন লিভার এবং কিডনির বিভিন্ন রোগ হতে পারে।


  সারা দিন যত জল পান করা হয় সমস্ত জল মূত্রনালী দিয়ে লিভার এবং কিডনির মাধ্যমে নির্গত হয়।  দেহ দুটি কিডনি, দুটি মূত্রনালী, একটি মূত্রাশয় এবং একটি মূত্রনালী দ্বারা গঠিত।


  মূত্রনালীর কোন অংশের ইনফেকশনে  'মূত্রনালীর সংক্রমণ' বলা হয়।  এই ধরনের ইনফেকশন কিডনি, ইউরেটার, মূত্রাশয় বা একাধিক অংশে একই সময়ে হতে পারে।  এই ইনফেকশন সংক্ষেপে 'ইউরিনারি ট্র্যাক্ট ইনফেকশন' বলা হয়।

  সাধারণত প্রত্যেকেরই এই সমস্যা হতে পারে।  যাইহোক, মহিলাদের মূত্রনালীর ইনফেকশনের প্রবণতা বেশি। 


জেনে নিন এর লক্ষণ :-


  গাঢ় হলুদ বা লালচে প্রস্রাব , প্রস্রাবে দুর্গন্ধ , ঘন ঘন প্রস্রাবের অনুভূতি, ঠিকমতো প্রস্রাব না করা, প্রস্রাব করার সময় জ্বালাপোড়া বা ব্যথা, তলপেটে এবং পিঠের নিচের অংশে তীব্র ব্যথা, শরীরে জ্বরের অনুভূতি, সঙ্গে জ্বর  কাঁপুনি এবং বমি বমি ভাব ইত্যাদি।


  মূত্রনালীর সংক্রমণের ক্ষেত্রে ঘরোয়া প্রতিকার গুলো জেনে নিন


  যদি আপনি মূত্রনালীর ইনফেকশনের লক্ষণ দেখতে পান, অবিলম্বে চিকিৎসা নিন।  ডাক্তারের পরামর্শ অনুযায়ী ওষুধ নিন। তবে  আপনি কয়েকটি ঘরোয়া প্রতিকারও অনুসরণ করতে পারেন।  জেনে নিন কি করতে হবে-


  দিনে ২ লিটার জল খান।  প্রস্রাবে হলুদ দেখলে প্রচুর জল পান করা উচিত।  প্রতি ৪-৫ ঘন্টা পর  প্রস্রাব করা উচিত।  দীর্ঘ সময় প্রস্রাব না করলে বেশি করে জল পান করুন।


  পর্যাপ্ত ভিটামিন সি খাওয়া উচিত।  ডাক্তাররা রোগীদের প্রতিদিন ৫০০ মিলিগ্রাম ভিটামিন সি খাওয়ার পরামর্শ দেন।  ভিটামিন সি মূত্রাশয়কে সুস্থ রাখে এবং প্রস্রাবের সময় জ্বালা কমায়।  ভিটামিন সি ক্ষতিকর ব্যাকটেরিয়াও ধ্বংস করে।


 যদি আপনার মূত্রনালীতে ইনফেকশন হয়, তাহলে আপনার বেশি আনারস খাওয়া উচিত।  এতে রয়েছে ব্রোমেলেন নামক উপকারী এনজাইম।  গবেষণায় দেখা গেছে যে মূত্রনালীর ইনফেকশন রোগীদের সাধারণত ব্রোমেলেন সমৃদ্ধ অ্যান্টিবায়োটিক দেওয়া হয়।  তাই যদি আপনার মূত্রনালীর সংক্রমণ হয়, তাহলে প্রতিদিন এক কাপ আনারসের রস খান।


  মূত্রনালীর সংক্রমণের কয়েক দিনের মধ্যেই কিডনিতে সংক্রমণ ছড়িয়ে পড়ে।  তাই যত তাড়াতাড়ি সম্ভব চিকিৎসা নেওয়া জরুরী।


  বেকিং সোডা মূত্রনালীর সংক্রমণ দ্রুত নিরাময়ে সাহায্য করে।  অতএব, আধা চা চামচ বেকিং সোডা এক গ্লাস জলে ভাল করে মিশিয়ে দিনে একবার  খেলেই প্রস্রাবের জ্বালা এবং ব্যথা কমে যাবে।


No comments: