Politics

[Politics][bleft]

West Bengal

[West Bengal][grids]

World

[World][bsummary]

National

[National][twocolumns]

শরীরের অভ্যন্তরীণ অঙ্গে রক্ত ​​জমাট বাঁধার সমস্যা ক্ষতিকারক, উপসর্গ উপেক্ষা করবেন না



 নিউজ ডেস্ক:  রক্ত জমাট বাঁধার প্রক্রিয়া মানুষের জীবন রক্ষাকারী হিসেবে কাজ করে, কিন্তু শরীরের অভ্যন্তরীণ অঙ্গে রক্ত ​​জমাট বাঁধা মারাত্মক প্রমাণিত হয়। শরীরের অনেক অংশ আছে যা রক্ত ​​জমাট বাঁধার জন্য ঝুঁকিপূর্ণ হতে পারে। আপনাকে অবশ্যই এ বিষয়ে সচেতন হতে হবে। আসুন এর সম্পর্কে বিস্তারিত জেনে নেওয়া যাক-


 শ্বাসযন্ত্র:

 শ্বাসযন্ত্রের একটি গুরুত্বপূর্ণ অংশ ফুসফুসে রক্ত ​​জমাট বাঁধার সমস্যাও রয়েছে, যাকে পালমোনারি এমবোলিজম বলা হয়। যখন ফুসফুসে রক্ত ​​জমাট বাঁধে, তখন অনেক ধরনের সমস্যা অনুভূত হতে শুরু করে। লক্ষণগুলির মধ্যে রয়েছে শ্বাসকষ্ট, বুকে ব্যথা, দ্রুত হৃদস্পন্দন, হালকা জ্বর, রক্ত কাশি। এই ধরনের পরিস্থিতিতে, একজন ব্যক্তির দেরি না করে ডাক্তারের পরামর্শ নেওয়া উচিৎ।


 মস্তিষ্ক:

শরীরের অন্য কোন অংশ থেকে রক্ত ​​প্রবাহের মাধ্যমে মস্তিষ্কে রক্ত ​​জমাট বেঁধে যায় অথবা রক্ত এখানে নিজেই জমাট বাঁধতে পারে। এমন অবস্থায় ব্রেন স্ট্রোকের ঝুঁকি বেড়ে যায়। যার কারণে গুরুতর মাথাব্যথা, বমি বমি ভাব, মাথা ঘোরা, কণ্ঠে তোতলামি, ঝাপসা দৃষ্টির মত সমস্যা দেখা যায়। শরীরের একটি অংশ অবশ হয়ে যেতে পারে, যার ফলে সেই ব্যক্তি নড়াচড়া করতেও পারেন না।


 হৃদয়ের ধমনী:

 হৃৎপিণ্ডে উপস্থিত রক্তনালীগুলি শরীরের সমস্ত অংশে রক্ত ​​বহন করার কাজ করে। অনেক সময় রক্তনালিতে জমাট বাঁধার কারণে রক্তের প্রবাহ সম্পূর্ণ বা আংশিকভাবে বন্ধ হয়ে যায়। এ কারণে হার্ট অক্সিজেন পায় না, এমন অবস্থায় বুকে ব্যথা হয় এবং হার্ট অ্যাটাকের ঝুঁকি বেড়ে যায়।


 চোখের জন্য ক্ষতিকর:

কখনও কখনও চোখে রক্ত ​​জমাট বাঁধতে থাকে, যার কারণে চোখের দৃষ্টি চিরতরে চলে যেতে পারে।  এমন অবস্থায় হঠাৎ করে দৃষ্টিশক্তি হারানোর সমস্যা বা তীব্র ব্যথা হতে পারে।


 সম্ভাব্য বিপদ:

 যদি কোন ব্যক্তি কোন গুরুতর অসুস্থতার কারণে দীর্ঘ সময় ধরে বিছানায় বিশ্রামে থাকে এমন অবস্থায় রক্ত জমাট বাঁধার সম্ভাবনা থাকে। কিছু দিন আগে অস্ত্রোপচার করা হয় এমন অবস্থায়, ক্যান্সারের চিকিৎসা চলছে এমন অবস্থায়, খুব বেশি ওজন বা এই রোগের পারিবারিক ইতিহাস আছে তাদের রক্ত জমাট বাঁধার সম্ভাব্য বেশি হতে পারে ।

No comments: